মোকাররম আলী শাহ (রহঃ) দরগাহ – মাগুরা

মাগুরা শহর থেকে প্রায় সাত কিলোমিটার পশ্চিমে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের উত্তর পাশে ইছাখাদা গ্রামে হযরত পীর মোকাররম আলী শাহ (রহঃ) দরগাহ । দরগার উত্তর পাশ দিয়ে পূর্বাভিনী নবগঙ্গা নদী বয়ে গেছে। ইসলামের বিখ্যাত প্রচারক ও মহান আধ্যাত্মিক সাধক হযরত মোকাররম আলী শাহ (রহঃ) দরগাহ নদীর তীরে লতা-পাতার নিচে নরম ছায়াময় মাটির কোমল বুকে চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন। বিখ্যাত ধর্ম প্রচারক ও মুসলিম শাসক খান জাহান আলী (রহ.) ১২ শিষ্যসহ যশোরের বারবাজারে ১৪০০ খ্রিস্টাব্দের দিকে আগমন করেন এবং এখান থেকেই তাঁর কাযর্ক্ষেত্রের দরজা খুলে যায়। পরে যশোর হয়ে বাগেরহাট যান। সেখানে তাঁর প্রচার ও কর্মকাণ্ডের পরিধির সাথে শিষ্যের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৩৬০।

হযরত খান জাহান আলী (রহ.)-এর অন্যতম শিষ্য হযরত পীর মোকাররম শাহ (রহ.) : সম্ভবতঃ বারবাজার থেকে উত্তরে ইছাখাদা গ্রামে এসে ইসলাম প্রচার শুরু করেন। তিনি এখানে একটি মসজিদ নির্মাণ করেন। এখন শুধু মসজিদের ধ্বংসাবশেষ রয়েছে। সে সময় নির্মিত ঈদগাহ মেহরাবটি এখনো দাঁড়িয়ে আছে। তিনি এখানে দুটি পুকুর খনন করেন যেগুলো এখন অনেকটাই ভরাট হয়ে গেছে সময়ের সাথে সাথে। মাজারের পবিত্রতা অক্ষুণ্ন রাখতে সম্প্রতি দুটি পুকুর খনন করা হয়েছে। মহান সাধক হজরত পীর মোকাররম আলী শাহ (রহ.)-এর অনেক অলৌকিক ক্ষমতা লোককাহিনী থেকে জানা যায়। মোকাররম আলী শাহ (রহঃ) দরগাহপ্রতি বছর ৩রা মাঘ এখানে পবিত্র ইসালে সওয়াব অনুষ্ঠিত হয়। এখানে একটি মাদ্রাসা অবস্থিত। আপাতত এখানে আলিম ক্লাস পর্যন্ত পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। হযরত পীর মোকাররম আলী শাহ (রঃ) দরগাহ মাগুরা সদর উপজেলার একটি ঐতিহাসিক ও ঐতিহ্যবাহী সুন্দর দর্শনীয় স্থান। পত্রপল্লবের স্নিগ্ধতায় নবগঙ্গার তীর ঘেঁষে এই দরগা শরীফের শান্ত নির্জনতা মনকে মরমীভাবনায় ভরিয়ে দেয়। ভক্তের হৃদয়ের আশা-আকাঙ্ক্ষাকে ধারণ করে মাগুরার ঐতিহ্যের এক অনন্য নিদর্শন এই দরগাহ।

অবস্থান:

হযরত পীর মোকাররম আলী শাহ (রহ.) এর দরগাহ মাগুরা-ঝিনাইদহ মহাসড়কের ইছাখাদরের ডান পাশে মাগুরা জেলা শহর থেকে ০৭ কিলোমিটার পশ্চিমে নবগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত। বাস, টেম্পু ও ভ্যানিযোগে যাতায়াত করা যায়। আমি আশা করি আপনি এখানে আসলে অনেক ভাল লাগবে। তাই আপনাদের স্বাগতম জানাছি মোকাররম আলী শাহ (রহঃ) দরগাহ দেখার জন্য।

 

এই ভ্রমণ স্থান সর্ম্পকে আরও  জানতে  চাইলে এই লিংকে দেখতে পারেন।

আপনি বরিশাল বিভাগ ভ্রমণ স্থানগুলো দেখতে পারেন।

 

 

 

Leave a Comment