বঙ্গবন্ধু যমুনা ইকো পার্ক – সিরাজগঞ্জ

বঙ্গবন্ধু যমুনা ইকো পার্ক সিরাজগঞ্জ জেলার একমাত্র বিনোদন কেন্দ্র। ২০০৭ সালে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে বন বিভাগ কর্তৃক ১২০ হেক্টর জমির উপর বঙ্গবন্ধু যমুনা ইকোপার্ক প্রতিষ্ঠিত হয়। সুনিবির প্রাকৃতিক সবুজে ঘেরা এই পার্কটি যমুনা নদী ও বঙ্গবন্ধু সেতুর নৈসর্গিক দৃশ্য, উন্মুক্ত প্রকৃতি ও রসালো প্রাকৃতিক পরিবেশের জন্য প্রতিদিন দর্শনার্থীদের আকর্ষণ করে।

এই বঙ্গবন্ধু যমুনা ইকোপার্ক সিরাজগঞ্জের কাছে যমুনা নদী এবং বঙ্গবন্ধু সেতুর সীমানায় একটি বিশাল এলাকা জুড়ে রয়েছে। এখান থেকে দেশের বৃহত্তম বঙ্গবন্ধু সেতু দেখা যায়। এছাড়াও বিভিন্ন ফলদ, বনজ ও ঔষধি গাছ এখানে মনোরম ছায়াময় পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। ইকো পার্ক এলাকায় রয়েছে চঞ্চলা হরিণ,ঝাউ বন,  কলকাকলী, থুজার সারি, নানাবিধ মোভাবর্ধনকারী ফরজ, বনজ ও ঔষধি বৃক্ষের সমারোহ, খরগোশ,ময়ুর, সাজারু,  ও বানরের হতচকিত চাহনি আর এলোমেলো হাঁটা পথ। ইকো-পার্কে আমলকি, জলপাই, পেয়ারা, আম, রড়ই, ডুমুর, ডেওয়া,  জাম, কাঠাল, তেঁতুল, ইপির-ইপিল, আকাশমনি, করবী,আরোকেরিয়া, জৈয়তন, বকুল, শিমুল, জারুল, মহুয়া, নাগেশ্বর,  ক্ঞ্চন, অর্জুন,কাঞ্জলভাদি, টেবুবিয়া ইত্যাদি বৃক্ষ সারি সারি দাঁড়িয়ে রয়েছে।

ইকো-পার্ক এলাকায় হরিণ, গুসাপ,কাঠবিড়ালি, উদবিড়াল, সাপ এবং বিভিন্ন প্রজাতির পাখি সহ বন্যপ্রাণীর একটি উন্মুক্ত বিন্যাস রয়েছে। খাঁচায় বন্দী প্রাণী হল বানর, খরগোশ, ময়ূর, সজারু, ইত্যাদি।

কিভাবে যাবেন:

ঢাকা থেকে উত্তরাঞ্চলের যেকোনো বাস বা ট্রেনে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম প্রান্তে নেমে ইকো পার্কে যাওয়া যায়। যাইহোক, আপনি যদি সিরাজগঞ্জ শহর থেকে বঙ্গবন্ধু যমুনা ইকোপার্কে যেতে চান তবে আপনাকে বাসে প্রায় ৮ কিলোমিটার দক্ষিণে যেতে হবে।

Leave a Comment