তেঁতুলিয়া জামে মসজিদ – সাতক্ষীরা

তেঁতুলিয়া জামে মসজিদ আগ্রার তাজমহলের অনন্য স্থাপত্য শৈলীর বিপরীতে ইসলামিক স্থাপত্যের একটি অনন্য উদাহরণ। ১৮ শতকের দ্বিতীয়ার্ধে, সালাম মঞ্জিলের প্রতিষ্ঠাতা, ব্রিটিশ সরকারের একজন সহকারী ম্যাজিস্ট্রেট জমিদার কাজী সালামদুল্লা মসজিদটি নির্মাণ করেন। ১৮১৫ খ্রিস্টাব্দে মসজিদটির নির্মাণ কাজ শেষ হয়। মসজিদটি সিকান্দার আবু জাফর রোডের পূর্ব পাশে অবস্থিত।

মসজিদটির ৭টি দরজা রয়েছে। প্রতিটি দরজা ৯ ফুট উঁচু এবং ৪ ফুট চওড়া। দরজায় বিভিন্ন রঙের কাঁচের পুঁতি রয়েছে। ভিতরে দুটি স্তম্ভ আছে। মসজিদের ছাদ ১২টি স্তম্ভের উপর নির্মিত যার প্রস্থ ১০ বর্গ মিটার। চাঁসুরকি ও চট্টগ্রামের রাজমিস্ত্রি নির্মিত মসজিদটিতে ১৫ ফুট উঁচু ৬টি বড় গম্বুজ এবং ৮ ফুট উঁচু ১৪টি মিনার রয়েছে। ২৫ ফুট উচ্চতার চার কোণে ৪টি মিনার। মসজিদের পাশে একটি গভীর পুকুর রয়েছে। পুকুরের নিচ থেকে সিঁড়ি উঠে গেছে মসজিদ চত্বরে। মসজিদে ৫ সারিতে ৩২৫ জন এবং মসজিদের বাইরে স্কোয়ারে ১৭৫ জন একসঙ্গে নামাজ পড়তে পারেন। ১৯৮৭ সালে, মসজিদটি বাংলাদেশ সরকারের প্রত্নতত্ত্ব মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রত্নতাত্ত্বিক হিসাবে গৃহীত হয়।

অবস্থান:

তেঁতুলিয়া জামে মসজিদ তালা উপজেলা সদর থেকে ৩/৪ কিমি দূরে অবস্থিত। মোটর চালিত গাড়িতে ১০/১৫ মিনিট সময় লাগে।

প্রয়োজনীয় তথ্য:

শহর থেকে আনুমানিক দূরত্ব ২৫ কিমি।

সড়কটির নাম তালা-পাইকগাছা সড়ক।

জায়গায় পৌঁছতে খরচ ৩৫ টাকা।

যাতায়াতের জন্য বাস, বেবি ট্যাক্সি, রিকশা, ভ্যান রয়েছে।

 

এই বিষয়ে আরও তথ্য  জানতে  চাইলে এই লিংকে দেখতে পারেন।

আপনি যদি ভ্রমণ পিপাসু হয়ে থাকেন তাহলে আধুনিক স্থাপত্য, ঐতিহাসিক স্থান, নদী ও সমুদ্র সৈকত, পাহাড়ি অঞ্চল, বাগান ও বনাঞ্চল, বিনোদন কেন্দ্র ইত্যাদি ভ্রমণ স্থানগুলো নিচের লিংক হতে পাবেন।

আপনি রাজশাহী বিভাগ ভ্রমণ স্থানগুলো দেখতে পারেন।

Leave a Comment