ঢাকা টু খুলনা বাস, ট্রেন ও বিমানের সময়সূচী এবং ভাড়া

ঢাকা টু খুলনা ভাড়া কত

আমরা এখন জানবো ঢাকা টু খুলনা বাস, ট্রেন ও বিমানের সময়সূচী এবং ভাড়া সম্পর্কে।

বর্তমানে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর ঢাকা টু খুলনার দূরত্ব অনেকটাই কমে গেছে।

তাই এখন ঢাকা থেকে খুলনার সব বাস ঢাকার সায়েদাবাদ থেকে সরাসরি পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে চলে।

তাই আপনি যদি ঢাকা থেকে খুলনা রুট সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য এবং সময়সূচী এবং টিকিটের মূল্য চান তাদের জন্য নিচে আলোচনা করা হলো।

ঢাকা টু খুলনা বাসের সময়সূচী ও ভাড়া

আজ আমরা ঢাকা টু খুলনা রুটে চলাচলকারী প্রতিটি বাসের তথ্য নিয়ে আলোচনা করব।

যারা ঢাকা টু খুলনা যেতে চান, তারা বিলাসবহুল, মানসম্পন্ন বাস অনুসন্ধান করে থাকেন এবং ভাড়া তালিকা এবং সময়সূচী জানতে চাই। তাই তাদের জন্য বিস্তারিত তথ্য নিচে দেওয়া হল।

ঢাকা থেকে খুলনা রুটে অনেক ভালো মানের বাস চলাচল করে থাকে। তাই আপনি যদি ঢাকা থেকে খুলনা রুটের একজন যাত্রী হয়ে থাকেন এবং যেকোনো বাসে যাতায়াত করতে চান তাহলে আপনি নিচের যেকোন বাসে যেতে পারেন।

অপারেটরসেবাপ্রথম ভ্রমনশেষ ভ্রমণ
সোহাগ পরিবহন3টি ট্রিপসকাল 07:3009:00 PM
হানিফ এন্টারপ্রাইজ16 ট্রিপ(গুলি)সকাল 06:3011:55 PM
টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস52 ট্রিপ(গুলি)04:45 AM11:30 PM
সউদিয়া কোচ সার্ভিস0 ট্রিপ12:30 AMরাত 11 ঃ 00 টা
এমাদ পরিবহন (প্রা.) লি.9 ট্রিপ(গুলি)05:00 AMরাত 10.00
হানিফ এন্টারপ্রাইজ2 ট্রিপ(গুলি)সকাল 09:3011:15 PM
দিগন্ত পরিবহন4 ট্রিপ(গুলি)সকাল 07:3009:30 PM
হানিফ এন্টারপ্রাইজ0 ট্রিপ11:55 PM11:55 PM
রাজকীয় পরিবহন1 ট্রিপ(গুলি)06:00 PM06:00 PM

ঢাকা টু খুলনা বাস ভাড়া

ঢাকা টু খুলনা যাতায়াতের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হল বাস, ট্রেন ও বিমান।

আজকের পোস্টটি তাদের জন্য যারা ঢাকা টু খুলনা বাসে যাওয়ার কথা ভাবছেন। এখানে আমি বাস ভাড়া এবং কোন কোন বাস চলে তা নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেছি।

এসি ও নন-এসি বাসের ভাড়া এখানে দেখানো হয়েছে ।

আমরা এসি এবং নন-এসি বাসের ভাড়া এখানে দেখিয়েছি ।

খুলনা যাওয়ার জন্য রাজধানী ঢাকার সায়েদাবাদ, গাবতলী ও মহাখালী বাস টার্মিনালসহ বিভিন্ন স্থান থেকে ঢাকা টু খুলনা রুটে বিভিন্ন ধরনের এসি, নন-এসি বাস চলাচল করে।

ঢাকা টু খুলনা এসি বাসের ভাড়া ও সময়সূচি-২০২৩

বর্তমানে এই রুটে দেশ ট্রাভেলস, হানিফ এন্টারপ্রাইজ, গ্রামীণ ট্রাভেলস, শ্যামলী পরিবহন, ন্যাশনাল ট্রাভেলস এবং একতা পরিবহন সহ বেশ কয়েকটি বাস সার্ভিস রয়েছে। এই অপারেটরগুলি হুন্ডাই ব্র্যান্ড, স্ক্যানিয়া হিনো থেকে এসি এবং নন-এসি বাস সরবরাহ করে। রাস্তার অবস্থার উপর নির্ভর করে প্রায় ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা পৌঁছাতে   সময় লাগে। বাস কোম্পানির ধরনের উপর নির্ভর করে, এই রুটের বাস টিকিটের মূল্য ৬০০ টাকা থেকে ১৪০০ টাকা পর্যন্ত পরিবর্তিত হয়।

যে সমস্ত এসি বাস ঢাকা টু খুলনা যায় সেগুলোর ভাড়া ও সময়সূচি নিচে দেওয়া হলো।

বাসের নামবাসের ব্র্যান্ডভাড়া
সোহাগ পরিবহনস্ক্যানিয়া (Scania)১৪০০
রবি এক্সপ্রেসহুন্দাই (Hyundai)১৪০০
গ্রীন লাইন পরিবহনভলভো/স্ক্যানিয়া (Volvo/Scania)১৪০০
দেশ ট্রাভেলসহুন্দাই (Hyundai)১৪০০
ফাল্গুনী মধুমতি পরিবহনহিনো (Hino)৭০০
ইমাদ পরিবহনহিনো (Hino)৭০০
টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসহিনো (Hino)৭০০

ঢাকা টু খুলনা নন-এসি বাসের ভাড়া ও সময়সূচি

যে সমস্ত ননএসি বাস ঢাকা টু খুলনা যায় সেগুলোর ভাড়া ও সময়সূচি নিচে দেওয়া হলো।

বাসের নামবাসের ব্র্যান্ডভাড়া
সোহাগ পরিবহনহিনো (Hino)৬৯০
হানিফ এন্টারপ্রাইজহিনো (Hino)৬৯০
টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসহিনো (Hino)৬০০
কনক পরিবহনহিনো (Hino)৬০০
ফাল্গুনী মধুমতি পরিবহনঅশোক লিল্যান্ড (Asok leyland)৬০০
ইমাদ পরিবহনBMW৬০০
একে ট্রাভেলসহিনো (Hino)৬৯০
দিগন্ত পরিবহনহিনো (Hino)৬৯০

অনলাইনে বাসের টিকিট 2023

আপনি যদি অনলাইনে ঢাকা থেকে খুলনা যাওয়ার বাসের টিকিট বুক করতে চান, আপনি খুব সহজেই তা করতে পারেন। আপনার মোবাইল থেকে সরাসরি shohoz.com-এ লগ ইন করুন এবং সেখানে দেখানো তিনটি পদ্ধতি বা ধাপের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার বাসের টিকিট বুক করুন। আপনি shohoz.com থেকে ঢাকা থেকে খুলনা রুটে চলা অনেক বাস দেখতে পাবেন। আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী বাস নির্বাচন করুন এবং আপনার ভ্রমণ উপভোগ করুন।

ঢাকা টু খুলনা ট্রেন ভাড়া

ট্রেনে খুলনা ভ্রমণ করতে চাইলে ঢাকা কমলাপুর কিংবা বিমানবন্দর রেলস্টেশন হতে আন্তঃনগর ট্রেনে খুলনা যেতে পারেন। ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের ভাড়া ও সময়সূচী সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করাবো।

ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী

আপনি যদি ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেনে যেতে চান তবে আপনাকে সুন্দরবন এক্সপ্রেস ও চিত্রা ট্রেনে ঢাকা থেকে খুলনা যাওয়ার সময়সূচী এবং টিকিটের মূল্য জানতে হবে। সেটাই এখানে উপস্থাপন করা হলো। ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেন ভাড়া সর্বনিম্ন ৫০৫ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১,৭৮১ টাকা।

এই রুটের ট্রেনগুলো সব আধুনিক সুযোগ-সুবিধা দিয়ে সজ্জিত। খুব কম বাজেট থেকে অতি বিলাসবহুল এসি কেবিন পর্যন্ত সব মানের আসন পাওয়া যায়। খাবারের ক্যান্টিন, প্রার্থনা কক্ষ, পরিষ্কার টয়লেট এবং পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে। এসব দিক বিবেচনায় অন্যান্য গণপরিবহনের চেয়ে ঢাকা থেকে খুলনা পর্যন্ত ট্রেনে যাতায়াত ভালো বলে মনে হয়।

২টি আন্তঃনগর ট্রেন ঢাকা থেকে খুলনাতে চলাচল করে যথা: সুন্দরবন এক্সপ্রেস ও চিত্রা ট্রেন।

ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের সময়সূচী

খুলনার উদেশ্যে ঢাকা থেকে আন্তঃনগর ও মেইল এক্সপ্রেস দুই ধরনেরই ট্রেন চলে। নিচে আন্তঃনগর ট্রেনের সময়সূচী দেখানো হলো।

ট্রেনের নাম ছাড়ার সময় পৌছায়সাপ্তাহিক বন্ধ বিরতি স্টেশন
সুন্দরবন এক্সপ্রেসসকাল ০৮:১৫বিকেল ৫:৪০মি.বুধবারদৌলতপুর, নয়াপাড়া, যশোর জংশন, মোবারকগঞ্জ, কোটচাঁদপুর, দর্শনা, চুয়াডাঙ্গা, আলমডাঙ্গা, পোড়াদহ জংশন, ভেড়ামারা, ঈশ্বরদী জংশন, চাটমোহর, বড়াল ব্রিজ, উল্লাপাড়া, জামতৈল জংশন, এম মনসুর আলি, বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব, মৌচাক, জয়দেবপুর জংশন, ঢাকা বিমানবন্দর রেলস্টেশন।
চিত্রা  এক্সপ্রেসসন্ধ্যা ০৭:০০মি.রাত ০৩:৪০মি.সোমবারদৌলতপুর, নয়াপাড়া, যশোর জংশন, মোবারকগঞ্জ, কোটচাঁদপুর, দর্শনা, চুয়াডাঙ্গা, আলমডাঙ্গা, পোড়াদহ জংশন, ভেড়ামারা, ঈশ্বরদী জংশন, চাটমোহর, বড়াল ব্রিজ, উল্লাপাড়া, জামতৈল জংশন, এম মনসুর আলি, বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব, মৌচাক, জয়দেবপুর জংশন,  ঢাকা বিমানবন্দর রেলস্টেশন।

খুলনা টু ঢাকা ট্রেনের সময়সূচী

ঢাকার উদেশ্যে খুলনা থেকে আন্তঃনগর ও মেইল এক্সপ্রেস দুই ধরনেরই ট্রেন চলে। নিচে আন্তঃনগর ট্রেনের সময়সূচী এবং বিরতি স্টেশনের একটি তালিকা দিচ্ছি। খুলনা টু ঢাকা রুটে চলাচলকারী বেশিরভাগ ট্রেন এই স্টেশনগুলোয় দু’-তিন মিনিট করে বিরতি নেয়।

ট্রেনের নাম ছাড়ার সময় পৌছায়সাপ্তাহিক বন্ধ বিরতি স্টেশন
সুন্দরবন এক্সপ্রেসরাত ১০.১৫মি.সকাল ৭টাবুধবারদৌলতপুর, নয়াপাড়া, যশোর জংশন, মোবারকগঞ্জ, কোটচাঁদপুর, দর্শনা, চুয়াডাঙ্গা, আলমডাঙ্গা, পোড়াদহ জংশন, ভেড়ামারা, ঈশ্বরদী জংশন, চাটমোহর, বড়াল ব্রিজ, উল্লাপাড়া, জামতৈল জংশন, এম মনসুর আলি, বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব, মৌচাক এবং জয়দেবপুর জংশন এবং ঢাকা বিমানবন্দর রেলস্টেশন।
চিত্রা এক্সপ্রেসসকাল ৯:০০মিবিকেল ৫:৫৫মি.সোমবারদৌলতপুর, নয়াপাড়া, যশোর জংশন, মোবারকগঞ্জ, কোটচাঁদপুর, দর্শনা, চুয়াডাঙ্গা, আলমডাঙ্গা, পোড়াদহ জংশন, ভেড়ামারা, ঈশ্বরদী জংশন, চাটমোহর, বড়াল ব্রিজ, উল্লাপাড়া, জামতৈল জংশন, এম মনসুর আলি, বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব, মৌচাক এবং জয়দেবপুর জংশন, ঢাকা বিমানবন্দর রেলস্টেশন।

ঢাকা টু খুলনা ট্রেনের টিকেট মূল্য-২০২৩

ঢাকা থেকে খুলনা যাওয়ার ট্রেনের সময়সূচির পর এখন আমরা জানি ঢাকা থেকে খুলনা ট্রেনে যাত্রা করলে টিকিটের জন্য কত টাকা দিতে হবে। আমরা বাংলাদেশ রেলওয়ের সর্বশেষ সংশোধিত মূল্য তালিকা অনুসারে উপরের দুটি ট্রেনে ভ্রমণের জন্য নীচে একটি টেবিল সংযুক্ত করেছি।

আন্তঃনগর সুন্দরবন এক্সপ্রেস ও চিত্রা ট্রেনের ভাড়া দেওয়া হলো।

ক্রমিক নংআসন বিভাগটিকিটের মূল্য
০১.শোভন৩৯০ টাকা
০২.শোভন চেয়ার৪৬৫টাকা
০৩.প্রথম আসন৬২০ টাকা
০৪.প্রথম বার্থ৯৩০টাকা
০৫.স্নিগ্ধা৮৯১ টাকা
০৬.এসি১০৭০টাকা
০৭.এসি বার্থ১৫৯৯টাকা

ঢাকা টু খুলনা ট্রেন টিকেট অনলাইন

বাংলাদেশ রেলওয়ে সম্প্রতি একটি ই-টিকিট সেবা চালু করেছে।যারা ট্রেনে ভ্রমণ করতে পছন্দ করেন তাদের জন্য সুখবর।

আপনার টিকিট বুক করার জন্য দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে না থেকে, আপনি এখন রেলওয়ে ই-সেবা ব্যবহার করে আপনার ঘরে বসেই ঢাকা টু খুলনা বা অন্য কোনো গন্তব্যের ট্রেনের টিকিট বুক করতে পারেন।

অনলাইনে টিকেট কাটার প্রক্রিয়াটি খুব সহজ যা মাত্র দুই মিনিটের মধ্যে করতে পারবেন।

কম্পিউটার অথবা স্মার্টফোন দিয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ে ই-সার্ভিস ওয়েবসাইটে এ সুবিধা পাবেন।

তারপরে আপনার প্রস্থান পয়েন্ট, গন্তব্য, আসন শ্রেণী এবং টিকিটের সংখ্যা নির্বাচন করুন এবং ‘সার্চ’ বোতামে ক্লিক করুন। আপনার ট্রেনের টিকিট আপনার ইমেল ইনবক্সে অবিলম্বে পৌঁছে যাবে।

অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কেনার জন্য ধাপে ধাপে নির্দেশিকা পেতে নীচের বোতামে ক্লিক করুন:

এখানে ক্লিক করুন

রেলওয়ে ষ্টেশন সম্পর্কিত তথ্য

কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন
ফোন: ০২-৯৩৫৮৬৩৪, ৯৩৩১৮২২,৮৩১৫৮৫৭
মোবাইল: ০১৭১১-৬৯১৬১২

বিমানবন্দর রেলওয়ে ষ্টেশন
ফোন: ০২-৮৯২৪২৩৯
ওয়েবসাইট: www.railway.gov.bd

ঢাকা টু খুলনা বিমান ভাড়া

বর্তমানে   ঢাকা টু খুলনা বিমান যাওয়ার ব্যবস্থা নাই। তবে বিমানে ঢাকা টু যশোর যাওয়ার পর বাস অথবা ট্রেনে খুলনা যেতে পারেন।

ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ৩টি বিমান সংস্থা ঢাকা টু যশোর ফ্লাইট পরিচালনা করছে। এগুলো হলঃ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স, নভোএয়ার এয়ারলাইন্স।

আপনি ঢাকা থেকে মাত্র ৪৫ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টায় খুলনা বিমানবন্দরে পৌঁছাতে পারেন।

বর্তমানে বাংলাদেশের এয়ারলাইন্সের উন্নতমানের সার্ভিস এবং সহজলভ্যতার কারণে এয়ারলাইন এখন খুবই জনপ্রিয়।

নিচে ঢাকা-খুলনা রুটে কোন এয়ারলাইন্স দ্বারা কতটি ফ্লাইট পরিচালনা করা হয় তার একটি হিসেব দেওয়া হল।

বারফ্লাইট সংখ্যা
শনিবারবিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স (১টি ফ্লাইট)
ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স (৪টি ফ্লাইট)
নভোএয়ার (৪টি ফ্লাইট)
রবিবারবিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স (২টি ফ্লাইট)
ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স (৪টি ফ্লাইট)
নভোএয়ার (৪টি ফ্লাইট)
সোমবারবিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স (২টি ফ্লাইট)
ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স (৪টি ফ্লাইট)
নভোএয়ার (৪টি ফ্লাইট)
মঙ্গলবারবিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স (২টি ফ্লাইট)
ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স (৪টি ফ্লাইট)
নভোএয়ার (৪টি ফ্লাইট)
বুধবার

 

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স (১টি ফ্লাইট)
ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স (৪টি ফ্লাইট)
নভোএয়ার (৪টি ফ্লাইট)
বৃহস্পতিবার

 

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স (২টি ফ্লাইট)
ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স (৪টি ফ্লাইট)
নভোএয়ার (৪টি ফ্লাইট)
শুক্রবার

 

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স (১টি ফ্লাইট)
ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স (৪টি ফ্লাইট)
নভোএয়ার (৪টি ফ্লাইট)

ঢাকা টু খুলনা বিমানের সময়সূচী

ঢাকা থেকে যশোর বিমান ভাড়া কত

জেনে নিন ঢাকা থেকে যশোর রুটের সবগুলো বিমানের ভাড়ার তালিকা। ভাড়া সংক্রান্ত তথ্যগুলো বিমান সংস্থার ওয়েবসাইট থেকে নেয়া।

ঢাকা টু যশোর বিমানের টিকিট ভাড়া

জেনে নিন ঢাকা থেকে যশোর রুটের সবগুলো বিমানের ভাড়ার তালিকা। ভাড়া সংক্রান্ত তথ্যগুলো বিমান সংস্থার ওয়েবসাইট থেকে নেয়া।

ঢাকা থেকে যশোরের বিমান ভাড়া

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স
৪,৫০০ থেকে ৫,০০০ টাকা (সুপার সেভার)
৫,০০০ থেকে ৯,০০০ টাকা (বিজনেস ফ্লেক্সিবল)
অনলাইন টিকেটঃ www.biman-airlines.com

নভোএয়ার এয়ারলাইন্স
৪,৫০০ থেকে ৫,০০০ টাকা (স্পেশাল প্রোমো)
৫,০০০ থেকে ৯,০০০ টাকা (ফ্লেক্সিবল)
অনলাইন টিকেটঃ www.flynovoair.com

ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স
৪,৫০০ থেকে ৫,০০০ টাকা (সর্বনিম্ন)
৫,০০০ থেকে ৯,০০০ টাকা (সর্বোচ্চ)
অনলাইন টিকেটঃ usbair.com

নিয়ম অনুসারে, প্রতিটি ইকোনমি যাত্রীকে 20 কেজি চেক করা মালামাল বহন অনুমতি দেওয়া হয়। এছাড়া হ্যান্ড লাগেজ হিসেবে ৭ কেজি পণ্য বহন করা যায়। বিজনেস ক্লাস যাত্রীদের 30 কেজি চেক করা লাগেজ এবং 7 কেজি হ্যান্ড লাগেজ দেওয়া হয়। আপনি যদি আরও লাগেজ বহন করতে চান তবে আপনাকে অতিরিক্ত চার্জ দিতে হবে। এই চার্জগুলি সম্পর্কে আরও জানতে অনুগ্রহ করে আপনার নির্দিষ্ট এয়ারলাইনের সাথে যোগাযোগ করুন৷

বি দ্রঃ বিমান ভাড়া সবসময় পরিবর্তনশীল।যেকোনো সময় ভাড়া পরিবর্তন হতে পারে।

ঢাকা টু যশোর বিমান টিকিট কিভাবে করবেন

অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে জাতীয় পরিচয়পত্র বহন করতে হবে। জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে কোনো অনুমোদিত অফিস বা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচয়পত্র হলেই হবে।

আপনার পছন্দের এবং নিকটস্থ এয়ার অফিস থেকে ঢাকা টু যশোর ফ্লাইট টিকেট বুক করুন। আপনি চাইলে ওয়েবসাইট থেকেও টিকিট বুক করতে পারেন। যারা ছাড়ের টিকিট চান তারা ট্রাভেল এজেন্সি থেকে টিকিট পেতে পারেন।

ঢাকা টু কুমিল্লা

 

 উপসংহার

আপনারা যারা বাস, ট্রেন এবং এয়ারলাইন ভাড়ার জন্য অনলাইন টিকিটের সময়সূচী সম্পর্কে সঠিক তথ্য প্রদানের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন তাদের এই নিবন্ধটি সবার সাথে শেয়ার করা উচিত।

অবশেষে, আমার এই নিবন্ধটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ.

কিছু সাধারণ প্রশ্ন ও উত্তর

ঢাকা টু খুলনা কত কিলোমিটার

  • সড়কপথে ঢাকা থেকে খুলনা প্রায় ৩৩৫ কিলোমিটার এবং ঢাকা থেকে খুলনা সড়কপথে যেতে প্রায় থেকে ঘণ্টা সময় লাগে
  • রেলপথে ঢাকা থেকে খুলনা প্রায় ৪০৪ কিলোমিটার এবং রেলপথে ঢাকা থেকে খুলনা যেতে সময় লাগে প্রায় থেকে ঘণ্টা
  • খুলনা সরাসরি বিমানে যাওয়ার ব্যবস্থা নাই। তবে ঢাকা টু যশোর হয়ে যেতে পারেন
  • আকাশপথে ঢাকা থেকে যশোর প্রায় ১৫০ কিলোমিটার এবং ঢাকা থেকে যশোর আকাশপথে যেতে প্রায় ৩৫ থেকে ৪৫মিনিট সময় লাগে

Leave a Comment