এসকেএস ইন-গাইবান্ধা

ভাঙা রাস্তা পার হয়ে রেস্ট হাউসে পৌঁছলেই প্রশান্তি অনুভব করবেন। প্রাকৃতিক পরিবেশে সমৃদ্ধ এই ক্যাম্পাসটি প্রায় পাঁচ হেক্টর এলাকাজুড়ে গড়ে উঠেছে। এটিতে কৃত্রিম ফোয়ারা, বাঁশের বন, বৈচিত্র্যময় গাছ, কৃত্রিম শব্দ এবং মনোরম পুকুর সহ বেশ কয়েকটি স্থাপনা রয়েছে।

প্রবেশ করলে ডান পাশে জলধারা নামে একটি রেস্টুরেন্ট দেখতে পাবেন। এই রেস্তোরাঁর পাশেই রয়েছে প্রাকৃতিক ঝর্ণার আকৃতির একটি ঝর্ণা। তারপর একটা ছোট পুকুর পাড়ে একটা রেস্ট হাউস। গাইবান্ধার বিখ্যাত স্থান এবং বিভিন্ন ফুল ও ফলের নামেও এই কটেজগুলোর নামকরণ করা হয়েছে। গাইবান্ধার আদি নাম ভবানীগঞ্জ নামে একটি কুটির আছে। তাছাড়া বাড়িগুলোর বিভিন্ন নাম দেওয়া হয়েছে যেমন বালাসী, কাশফুল, নীলপদ্ম,সারাবেলা, রাধাকুঞ্জ,  ছায়াপদ্ম, কামিনী, ।

প্রতিটি কটেজ এর সামনে জলরাশি।যেখানে বিভিন্ন মাছ ও হাঁস আকৃতির নৌকা রাখা হয়েছে। কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে অতিথিরা ইচ্ছা করলে এসব নৌকা ব্যবহার করতে পারবেন।এসকেএস ইন-এ ৭টি কটেজ রয়েছে। বাসা ভাড়াও আয়ত্বের মধ্যেই। এছাড়াও, বিভিন্ন সম্মেলন ও সেমিনার করার জন্য সুসজ্জিত কক্ষ রয়েছে। একটি স্ট্যান্ডার্ড এসি কনফারেন্স রুম যেখানে 70 জন বসতে পারে । 35 জন বসার একটি ক্লাসরুম রয়েছে। এছাড়াও একটি ব্যাকুয়েট হল রয়েছে ।এই কক্ষে একসাথে 200 জন বসতে পারে।

যারা গাইবান্ধায় একটি ভালো মানের রেস্ট হাউজ খুঁজছেন তাদের জন্য, SKS Inn এর মতো কোথাও খুঁজে পাওয়া যাবেনা। SKS Inn-এ লাঞ্চ, ডিনার এবং প্রাতঃরাশের জন্য সমস্ত বাংলা খাবার রয়েছে। চাইনিজ খাবারও পাওয়া যায়। সকালের নাস্তায় রয়েছে রুটি, পরোটা, মিশ্র সবজি, ভাজা খিচুড়ি, মিষ্টি, ডিম, চা, কফি এবং জুস।লাঞ্চ এবং ডিনার বিকল্পগুলির মধ্যে রয়েছে সাদা ভাত, মুরগির মাংস, গরুর মাংস, মাটন,সালাদ, ডাল, তরকারি, মিশ্র সবজি, ফিরনি বা জর্দা, মিনারেল ওয়াটার,

এসকেএস ইনও নিরাপত্তার দিক থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা বজায় রেখেছে। পুরো এলাকা সিসিটিভি ক্যামেরা দিয়ে সুরক্ষিত। আমাদের নিজস্ব সেনাদের সঙ্গেও নিরাপত্তা চুক্তি করা হয়েছে। এসকেএস ইন রাতে আরামদায়ক, সুন্দর। চারদিকে নানা রঙের আলো, একটু দূরে ছোট গাছের নিচে বসার জায়গা। প্রবেশ করলেই গান শোনা যায়। SKS Inn-এর খাবার, এখানকার কর্মীদের আতিথেয়তা সত্যিই আপনাকে মুগ্ধ করবে।

 

প্রবেশমূল্য প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ৫০ টাকা এবং শিশুদের জন্য ৩০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

Leave a Comment